এইচএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষণ করার নিয়ম [HSC বোর্ড চ্যালেঞ্জ 2019]

এইচএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষণ

এইচএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষণ করতে চান? আপনারা জানেন, ১৭ জুলাই (বুধবার) তারিখে প্রকাশিত হয়েছে ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল। এবারের এই উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় গড়ে পাসের হার ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ। গত বছরের তুলনায়, এবছর এইচএসসি পরীক্ষায় পাসের হার বেড়েছে ৭ দশমিক ২৯ শতাংশ। ৪৭ হাজার ৫৮৬ জন পেয়েছে জিপিএ-৫। আর সর্বমোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১৩ লাখ ৫৮ হাজার ৫০৫ জন।

তবে বিভিন্ন কারণে অনেক শিক্ষার্থীই কাঙ্ক্ষিত ফলাফল পান না। খাতা নিরীক্ষণে অনিচ্ছাকৃত ভুল ত্রুটি থাকতেই পারে। এ ধরনের সন্দেহে যেকোন এইচএসসি পরীক্ষার্থী করতে পারেন বোর্ড চ্যালেঞ্জ কিংবা ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন। HSC রেজাল্ট বোর্ড চ্যালেঞ্জ নিয়ে আমাদের আজকের পোস্ট। আপনি যদি এইচএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষণ -এর জন্য আবেদন করতে আগ্রহী হয়ে থাকেন। তবে পুরো পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। HSC বোর্ড চ্যালেঞ্জ -এর বিস্তারিত তথ্য শেয়ার করা হয়েছে আজকের পোস্টে।

এইচএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ রেজাল্ট (HSC Board Challenge Result 2019 Download / Rescrutiny Result PDF)

বোর্ড চ্যালেঞ্জ বা ফল পুনঃনিরীক্ষণ কি?

ফল পুনঃনিরীক্ষণ বা বোর্ড চ্যালেঞ্জ এক ধরনের অনুমোদিত পদ্ধতি যার মাধ্যমে আপনি কোন পাবলিক পরীক্ষায় কাঙ্ক্ষিত ফল না পেলে কিংবা ফল নিয়ে কোন সন্দেহ থাকলে সেই খাতা পুনরায় মূল্যায়ন করা হয়। নির্দিষ্ট ফি পরিশোধের বিনিময়ে আপনার খাতা পুনরায় যাচাই-বাছাই এবং মূলায়ন করতে পারবেন এই পদ্ধতিতে। এটি Rescrutiny নামেও পরিচিত। উদাহরন স্বরূপ মনে করুন, আপনি এবারের এইচএসসি পরীক্ষা খুব ভাল দিয়েছিলেন। কিন্ত ফলাফলে দেখলেন একটি বিষয়ে ফেল করেছেন। কিন্ত আপনি যথেস্ট আত্মবিশ্বাসী যে, আপনি সেই ফেল করা বিষয় খুবই ভাল পরীক্ষা দিয়েছেন। এমন অবস্থায়, আপনি বোর্ডকে চ্যালেঞ্জ করে ফল পুনঃমূল্যায়নের আবেদন করতে পারবেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে আপনার ঐ নির্দিষ্ট বিষয়ের খাতা পুনরায় মূল্যায়ন করবে আপনার শিক্ষা বোর্ড। এরপর যদি আপনি আসলেই ফেল করে না থাকেন কিংবা বেশি নম্বর পেয়ে থাকেন। তবে সে অনুযায়ি আপনার ফল পরিবর্তন করার ব্যবস্থা নিবে শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ।

২০১৯ সালের এইচএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষণ করার নিয়ম

অনেকেই মনে করেন বোর্ড চ্যালেঞ্জের জন্য শিক্ষা বোর্ডের অফিসে যাওয়ার প্রয়োজন হয়। যা সম্পূর্ণ ভ্রান্ত একটি ধারণা। আপনার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন কিংবা বোর্ড চ্যালেঞ্জ আপনি করতে পারবেন সম্পূর্ণ ঘরে বসেই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে। এজন্য আপনার প্রয়োজন হবে একটি টেলিটক সিম। আর প্রতিটি বিষয়ের জন্য আবেদনের জন্য ১৫০টাকা প্রয়োজন হবে। সেই হিসাবে, আপনি যে কয়টি বিষয়ে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে চান সেই পরিমাণ টাকা রিচার্জ করুন টেলিটক সিমটিতে। এরপর বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে নিচের নিয়ম ফলো করুন:

বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম
এইচএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষণ করার নিয়ম
  • মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে লিখুন RSC। এরপর স্পেস দিয়ে লিখুন আপনার শিক্ষা বোর্ডের প্রথম তিনটি অক্ষর। যেমন: ঢাকা বোর্ডের জন্য DHA। তারপর আরেকটি স্পেস দিয়ে আপনার এইচএসসি রোল নম্বর লিখুন। সবশেষে আরও একটি স্পেস দিয়ে লিখুন যে বিষয়ে আবেদন করতে চান সেই বিষয়ের বিষয় কোড। এবার মেসেজটি পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে। একাধিক বিষয়ে যদি আবেদন করতে চান তাহলে কাঙ্ক্ষিত বিষয় কোডগুলো কমা দিয়ে লিখতে হবে।
  • ফিরতি এসএমএসে আবেদন ফি বাবদ যে পরিমাণ টাকা কেটে নিবে তা জানিয়ে একটি PIN Number পাঠাবে টেলিটক। আবেদনে সম্মত হলে আবারো মেসেজ অপশনে গিয়ে লিখুন RSC <space> Yes <space> Pin Number <space> আপনার সাথে যোগাযোগের জন্য একটি ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বর লিখুন। এবার মেসেজটি পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে। এরপর আবেদন সফলভাবে হলে কনফার্মেশন মেসেজ পাবেন।

পুনঃনিরীক্ষণ / বোর্ড চ্যালেঞ্জ / Rescrutiny নিয়ে কিছু প্রশ্নের উত্তর

বোর্ড চ্যালেঞ্জ কিংবা ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ নিয়ে অনেকেরই অনেক রকম জিজ্ঞাসা থাকে। যেহেতু আপনি এইচএসসি পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন করতে চাচ্ছেন। সেহেতু, এই সংক্রান্ত খুটিনাটি সব তথ্য জেনে রাখা উচিত। এবারের এইচ এস সি ফল বোর্ড চ্যালেঞ্জ সংক্রান্ত কিছু সচরাচর জিজ্ঞাসিত প্রশ্নের উত্তর নিচে দেয়া হল:

এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট বোর্ড চ্যালেঞ্জের সময়সীমা কতদিন পর্যন্ত?
উত্তর: ১৮/০৭/২০১৯ থেকে ২৪/০৭/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত আপনি HSC Board Challenge করতে পারবেন।

বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে কত টাকা লাগবে?
উত্তর: প্রতি বিষয় পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন করতে ১৫০ টাকা করে লাগবে।

পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন করতে কি কি লাগবে?
উত্তর: একটি মোবাইল ফোন, টেলিটক সিম এবং প্রতি বিষয় ১৫০ টাকা হারে রিচার্জ। অর্থাৎ আপনি যে কয়টি বিষয় আবেদন করতে চান প্রত্যেকটি বিষয়ের জন্য ১৫০টাকা হারে হিসেব করে রিচার্জ করতে হবে আপনার টেলিটক সিমে।

আমার টেলিটক সিম নেই। আমি কিভাবে এইচএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে পারব?
উত্তর: আপনার আত্মীয়, বন্ধু বান্ধবের টেলিটক সিম দিয়েও আবেদন করতে পারবেন। কিংবা যেকোন কম্পিউটারের দোকান থেকেও এই আবেদন করতে পারবেন। অর্থাৎ, অন্যের টেলিটক সিম দিয়েও আবেদন করা যাবে ফল পুনঃনিরিক্ষণের জন্য।

বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে কি শিক্ষা বোর্ডে যোগাযোগ করতে হবে?
উত্তর: একদমই না! আপনি শুধু টেলিটক সিম দিয়ে নির্দিষ্ট নিয়মে আবেদন করলেই হয়ে যাবে। শিক্ষা বোর্ডে যোগাযোগের কোন প্রয়োজন নেই।

বোর্ড চ্যালেঞ্জ করব কিভাবে?
উত্তর: এই পোস্টে বোর্ড চ্যালেঞ্জের নিয়ম বিস্তারিত দেয়া আছে।

বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে কি আসলেই ফল পরিবর্তন হয়?
উত্তর: আপনার খাতা পুনঃমূল্যায়নের পর আপনি যদি বেশি নম্বর পেয়ে থাকেন। তবে অবশ্যই ফল পরিবর্তন হবে।

এইচ এস সি পুনঃমূল্যায়ন / বোর্ড চ্যালেঞ্জের রেজাল্ট কবে দিবে?
উত্তর: সাধারনত ফলাফল প্রকাশের ৩০ দিনের মধ্যেই বোর্ড চ্যালেঞ্জের রেজাল্ট দিয়ে থাকে। অর্থাৎ ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার বোর্ড চ্যালেঞ্জ রেজাল্ট আগামী ১৮ আগস্টের মাঝে দিবে আশা করা যায়। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, আগামী ১৬ আগস্ট, এই রেজাল্ট প্রকাশিত হবে।

বোর্ড চ্যালেঞ্জের রেজাল্ট দেখব কিভাবে?
উত্তর: প্রতি শিক্ষা বোর্ড ফল পুনঃনিরীক্ষণের ফলাফল তাঁদের নিজ নিজ ওয়েবসাইটে পিডিএফ আকারে প্রকাশ করে থাকে। এছাড়াও, আবেদনকারীরা তাঁদের মোবাইল নম্বরেও এসএমএস আকারে ফলাফল পেয়ে যাবেন। তাই রেজাল্ট প্রকাশের তারিখ কিংবা রেজাল্ট দেখার নিয়ম নিয়ে চিন্তা করার কোন কারণ নেই।

এইচএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষণ আবেদনকারীদের জন্য শুভ কামনা

আপনি যদি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে থাকেন। তবে আপনার জন্য রইল শুভ কামনা। কারণ, আপনার ফলাফলের ব্যাপারে আপনি যদি যথেস্ট আত্মবিশ্বাসী হয়ে থাকেন। তবে আশা করা যায়, আপনার কাঙ্ক্ষিত ফলাফল আসবেই। তাই, এখন অপেক্ষার পালা আরও একটি ফলাফলের…

আরও কিছু পোস্ট

১০৫টি মন্তব্য

      1. আমি ইতোমধ্যেই দুইটি বিষয়ের(দুটি ভিন্ন বিষয়ের প্রথম পত্রের) জন্য একটি এসএমএস দিয়েছি। এখন আরেকটা বিষয়ে(ওই দুটি বিষয়ের একটির দ্বিতীয় পত্রের) জন্য দিতে চাই, এরজন্য কি আবার আরেকটা এসএমএস দিব?

    1. এই ব্যাপারটা আসলে নির্ভর করে। যেহেতু এ ব্যাপারে বোর্ড স্পস্টভাবে কিছু বলেনা। আমাদের মতে, পুরো খাতা অবশ্যই দেখা হয়। প্রথমত, এক নজরে চোখ বুলিয়ে দেখা হয় সম্ভবত। এরপর খাতার নম্বরের প্রেক্ষিতে প্রয়োজনে আবারো গুরুত্বের সাথে দেখা করা হয়।

    1. https://comillaboard.portal.gov.bd/ এটি কুমিল্লা বোর্ডের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ঠিকানা। ওয়েবসাইটে ভিজিট করেও আপনি পুনঃনিরীক্ষণ বিজ্ঞপ্তিটি দেখতে পারবেন। আর বোর্ড চ্যালেঞ্জের রেজাল্ট ১৮ আগস্টে দেয়া হবে এমনটা বলা হয়নি। সাধারনত, ৩০ দিনের মাঝে ফলাফল দিয়ে থাকে তাই সেই হিসাবে ১৮ তারিখের কথা বলা হয়েছে। অর্থাৎ ১৮ আগস্টের মাঝেই যেকোন দিন ফলাফল দিবে বোর্ড চ্যালেঞ্জের। ধন্যবাদ

      1. বোর্ড চ্যালেঞ্জ এ ফিন্যান্স টা করবো তো আমি এসএমএস এই আবেদন করার সময় বিষয় কোড কি ১ম ও ২য় পএ দুইটা দিবো নাকি একটা দিবো

          1. ভাই আমার বোড চ্যালেনজ রেজাল্ট আসে নি।আমি কনফার্ম ওরা আমার কাগজ দেখে নাই।আমি ইংরেজী ১ম পএে মাএ ০৬ নাম্বার এর জন্য পেল করলাম।আমি ঐ বিষয়ে ৯০ এর উওর দিয়েছি ।আমি কুমিল্লা বোড থেকে পরিখকা দিয়েছি।আমি মান নিয় শিক্ষা মনএীর কাছে আবেদন করবো ।যে এটা সঠিক ভাবে দেখা হয় নি।

        1. দেশের আইন অনুযায়ি, যেকোন বিষয়ে আপনি আইনের আওতায় বিচার পেতে পারেন। আপনার যদি মনে হয়, তাঁরা অনৈতিকভাবে আপনার খাতা ঠিকভাবে মূল্যায়ন করেনি। সেক্ষেত্রে আপনি আইনের শাসন চাইতেই পারেন। কিন্ত এটি আপনার একান্তই ব্যক্তিগত ব্যাপার। কেস করার মতো এ ধরনের ঘটনা ইতিপূর্বে ঘটেনি। বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে আপনার খাতা ঠিকভাবেই মূল্যায়ন করা হয়। এটুকু বিশ্বাস বোর্ডের উপর আপনার রাখা উচিত। বাকি সিদ্ধান্ত একান্তই আপনার।

  1. বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার সময় আমাকে কি বিষয় কোড ১ম পএ ও ২য় পএ ২টা কোড দিতে হবে নাকি কোড একটা দিলে হবে আমি ফিন্যান্স করবো Rsc chi roll subject code 292-293 এভাবে দিবো নাকি 292 দিলে হবে

    1. আপনি সম্ভবত আপনার শিক্ষা বোর্ডের প্রথম ৩টি অক্ষর উল্লেখ করেন নি। যেমনঃ আপনি যদি ঢাকা বোর্ডের হয়ে থাকেন তবে DHA এটা লিখতে হবে। পোস্টে উল্লেখিত নিয়ম ভালভাবে ফলো করে এসএমএস করুন, অবশ্যই হবে।

  2. আমি মানবিক বিভাগের। আমি যথাযথ সঠিক নিয়মে মেসেজ পাঠিয়েছে যে
    RSC DHA 1***** 101, 107, 108, 269, 270
    কিন্তু 269 ও 270 দুটি যথাক্রমে পৌরনীতি প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র, সমস্যা হলো, ফিরতি মেসেজ আসছে, SORRY, your subject code (270) was not found in HSC 2019 result database.
    Would you please tell me the reason!Thank you!

    1. টেলিটককে বোর্ড যে বিষয় কোডগুলোর ব্যাপারে নির্দেশনা দিয়েছে সেভাবেই তাঁরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাজ করে। হয়ত এই বিষয়ের দ্বিতীয় পত্রের বিষয়ে কোন নির্দেশনা নেই। তাই হয়ত এরকম দেখাচ্ছে। আপনি আপনার শিক্ষা বোর্ড অথবা টেলিটকের সাথে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ

    1. মানে, শিক্ষা বোর্ডের অফিসে গিয়ে আবেদনের কোন সুযোগ নেই। অর্থাৎ, আপনাকে টেলিটক সিম দিয়ে এসএমএসের মাধ্যমেই আবেদন করতে হবে। যা সম্পূর্ণ অটোমেটিক প্রসেস।

    1. না, শিক্ষা বোর্ডে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। তবে, বিভিন্ন সময় পত্র পত্রিকার নিউজে খেয়াল করে থাকবেন যে, বোর্ড চ্যালেঞ্জ নিয়ে কোটি টাকার বানিজ্য হয়। সেটা অসুদুপায়। সেটার জন্য বোর্ডে যায় অনেকেই!

    1. না ভাইয়া, বোর্ডে গিয়ে নিজে খাতা দেখার কোন সুযোগ নাই। নিয়ম অনুযায়ি আপনি আবেদন করলে তাঁরাই খাতা পুনঃমূল্যায়ন করে দেখবে এবং যদি মার্কস সংক্রান্ত কোন ভুলভ্রান্তি হয়ে থাকে সেটা পরিবর্তন করে রেজাল্ট দিবে।

        1. ভাই, সাধারনত বোর্ড চ্যালেঞ্জে নম্বর কমায়না। হয় আগেরটাই থাকে নতুবা বেশি পেলে সেই অনুযায়ি নতুন রেজাল্ট দেয়। এতদিন এটাই দেখে আসছি, শুনে আসছি।

  3. ভাই,আমি এইবার এইচ এস সি পরীক্ষায় ২ টি বিষয়ে একদমই আশানুরূপ নাম্বার পাইনি। আমাকে শুধু ২৩ লিখিত দিয়ে পাস দিয়েছে। কিন্তু ওই বিষয় গুলোর ২য় পত্রে খুবই ভালো নাম্বার পেয়েছি। আমি বলতে চাচ্ছি যদি বোর্ড চেলেন্স করি তাহলে কি আবার কোনো কারনে ফেইল আসার সম্ভাবনা আছে?মানে নাম্বার আরো কমার সসম্ভাবনা ও কি থাকে?ভাই দয়া করে উত্তরটি দেন

    1. না ভাই। বোর্ড চ্যালেঞ্জে নম্বর কমা কিংবা রেজাল্ট কমিয়ে দেয়ার কোন সুযোগ নেই। যদি আপনি বেশি নম্বর পান। তবে সেই অনুযায়ি নতুন রেজাল্ট হবে। কিন্ত মার্কস কমার কোন সুযোগ নেই। বেশি না পেলে আগের মতোই রেজাল্ট থেকে যাবে। আপনি আত্মবিশ্বাসী হয়ে থাকলে নির্ভয়ে পুনঃমূল্যায়নের আবেদন করে ফেলুন।

  4. ভাইয়া, আমার ICT তে ১, ফিজিক্সে ১ ও কেমিস্ট্রিতে ২ নাম্বার বাড়লেই ভালো একটা A grade আসে। পাইছি 3.75। তবে কি আমি ১+২+২ সাব্জেক্ট চ্যালেঞ্জ করলে 2/1 নাম্বার বাড়ার ইনশাআল্লাহ সম্ভাবনা আছে?
    প্লিজ জানাবেন ভাইয়া।

    1. দেখুন ভাইয়া, এভাবে বলা অনেক কঠিন। কারণ, কোন প্রশ্নে মার্কস বাদ পড়েছে কিনা। মার্কস যোগ করতে কোন ভুল হয়েছে কিনা। কোন উত্তরে অস্বাভাবিক কম মার্কস দিয়েছে কিনা। আমি যতদূর জানি, এরকম ব্যাপারগুলোই শুধু যাচাই বাছাই করে থাকে। তাই, আপনার ২-১ মার্কস বাড়বে কিনা এটা বলা একেবারেই মুশকিল। আবেদন করতে আপনার সমস্যা না থাকলে আবেদন করে দেখতে পারেন। ক্ষতি তো নেই! আশা করি, বুঝতে পেরেছেন।

    1. জি ভাই, অনেকটাই সত্যি! মূলত তাঁরা খাতায় কোন উত্তরে মার্কস দেয়া বাদ পড়েছে কিনা, মার্কস যোগ করতে ভুল হয়েছে কিনা। এই ধরনের বিষয় গুলোই খেয়াল করে। প্রয়োজনবোধে আরও কিছু দেখতে পারে। কিন্ত তাঁরা প্রাথমিকভাবে এটাই করে। সেই হিসেবে আপনার কথাটিও ঠিক।

        1. বোর্ড চ্যালেঞ্জ করবেন কিনা সেটা আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার। আপনি যদি জেনেই থাকেন আপনি ৭ পেয়েছেন তবে তো বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার কোন যৌক্তিকতা নেই। বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে তো আর এমনি এমনি নম্বর বাড়িয়ে দিবে না।

  5. আমি ২০১৯ সনের এইচএসসি (বিএম) পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করি। প্রথম পরীক্ষার দিন অর্থাৎ ০১/০৪/২০১৯ তারিখে অনুষ্ঠিত বাংলা পরীক্ষার (কোড নম্বরঃ ১৮২১)উত্তরপত্রে নিজ রোল নম্বর/ রেজিঃ নম্বর ও অন্যান্য তথ্যাবলির বৃত্ত ভরাটের সময় অসাবধানতাবশত নির্ধারিত বৃত্তের অতিরিক্ত বৃত্ত ভরাট হয়ে যায়। কিন্তু আমি বাংলা বিষয়ে খুব ভাল পরীক্ষা দিয়েছি। কিন্তু ১৭ জুলাই ২০১৯ তারিখে প্রকাশিত ফলাফলে আমার সকল বিষয়ে উত্তীর্ণ হলেও বাংলা বিষয়ে অনুত্তীর্ন এসেছে। এ বিষয়ে মতামত কি?

    1. ভাই, প্রতি বছর বোর্ড চ্যালেঞ্জের রেজাল্ট সাধারনত মূল পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পরবর্তী ৩০ দিনের মাঝে করা হয়ে থাকে। সেই হিসাবে ১৮ আগস্টের আগে যেকোন দিন দিবে। রেজাল্ট প্রকাশ হলে জানতে পারবেন। আপনিও বোর্ড চ্যালেঞ্জের আবেদন করে থাকলে ফলাফল মোবাইলে অটোমেটিক পেয়ে যাবেন।

  6. vai deya mark er ceye jodi mark kom ase taile ki korbe vai.. ans please.. number ki komaia debe r GPA o ki komaia debe . ans please vai.. ami biology 1st paper e challenge korchi.. 2nd paper e kori nai.. 2nd paper e valoi number paichi.. ami biology 1st paper challenge korchi.. taile ki 2nd paper er ta abar dekhbe .. naki sudu 1st paper er ta dekhbe??[NB:biology 2nd paper challenge kori nai]

  7. আসসালামু আলাইকুম
    প্রথমে আমার সালাম নিবেন আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন,, আমি সোহেল হোসেন গাজী চাঁদপুর সদর চাঁদপুর থেকে বলছি
    স্যার আমি কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের আন্ডারে
    2017-2018 সেকশন,, যাহার রেজাল্ট দেয় 2019-6/17 তারিখ এইচ এস সি পরীক্ষা দেই। যাহার রোল নাম্বার ২১০১২৮। রেজিস্ট্রেশন নাম্বার১৪১৮৬৮৬৪৪৫, কিন্তু স্যার অনেক ভালো পরীক্ষা দিয়েছি। কিন্তু দুঃখের বিষয় হল। বাংলা এবং পৌরনীতিতে। এতটাই খারাপ করে যা আমি আশা করি না।। বাবা-মার রাগে ক্ষোভে। আজ আমি বাসা থেকে অনেক দূরে চলে এসেছি। জানিনা কখনো বাসায় ফিরে যাওয়া হবে কিনা। হাজারো কষ্টের মাঝে আছি। একবার ভেবেছিলাম আত্মহত্যা করব। কিন্তু আমার এক বড় ভাই বলল। বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে নাকি। রেজাল্ট ঠিক হয়ে যাবে। সেই আশা নিয়ে আমি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করছি। শুনছি 17 ই আগস্ট এর মধ্যে রেজাল্ট দিব। যদি স্যার আমার রেজাল্ট ঠিক না হয়। তাহলে আমি আত্মহত্যা করব। তার জন্য দায়ী থাকবে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড।। কসম কাটলাম।

    1. আবেগের বশবর্তী হয়ে এরকম সিদ্ধান্ত মোটেও কাম্য নয়, ভাই। একটি সামান্য পরীক্ষার ফলাফল কখনই জীবনের চেয়ে বেশি মূল্যবান হতে পারেনা। শুভ কামনা আপনার জন্য।

  8. আমি ফল পুনঃনিরিক্ষনের জন্য আবেদন করছি।রেসাল্ট তো একমাস পর দিবে।তাহলে আমি কি এখন ভার্সিটি এডমিশনের জন্য আবেদন করতে পারব? নাকি রেসাল্ট না হইলে পারবনা?

      1. আমি যদি ফল পুনঃনিরিক্ষনের রেজাল্ট পাওয়ার আগে এডমিশন এর জন্য আবেদন করি, আর পরে যদি রেজাল্ট চেন্জ হয় সেটা কি নিজে নিজে এড হয়ে যাবে? নাকি যে ভার্সিটির জন্য আবেদন করব তারা আগের রেজাল্ট ই কাউন্ট করবে?

  9. আমি সিলেট বোর্ডের অধীনে বলছি। আমি ইংরেজি প্রথম পত্রে ৪৬ পেয়েছি এবং ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রে ০০৩ পেয়েছি। রি এক্সাম এ কি পরিবর্তন হবে?যদি পরিবর্তন না হয় তখন করণীয় কি?

  10. আমার প্রশ্ন হচ্ছে ১০০ নম্বর এর মধ্যে ০০৩ পাওয়া কি করে সম্ভব? এখানে ছাত্রের ভূল নাকি পরিক্ষার খাতা দেখা শিক্ষকের ভূল? আমি সঠিক উত্তর পাইনি। আপনি আমার প্রশ্ন বুঝতে পারছেন না।

    1. জি, এখন বুঝতে পেরেছি। আপনি যেহেতু পরীক্ষার্থী, তাই আপনিই ভাল জানবেন যে, আপনি কেমন দিয়েছেন সেই পরীক্ষাটি। যদি আপনি শিওর হয়ে থাকেন যে, আপনি কোনভাবেই ০০৩ পাওয়ার যোগ্য নয়। তবে অবশ্যই সেটি শিক্ষকের খাতা মূল্যায়নে ভুল হতে পারে। সেজন্যই তো বোর্ড চ্যালেঞ্জের অপশনটি। আপনি যদি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে থাকেন তবে শুভ কামনা, হয়ত ভাল ফলাফল পাবেন। কিন্ত, বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে না থাকলে এখন আর এপ্লাই করতে পারবেন না। কারণ, বোর্ড চ্যালেঞ্জের সময় শেষ হয়ে গেছে।

  11. মিঃ মারুফ ভাই, অনেক সময় অনেকের করা প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইলে আপনি সম্ভাব্য কিছু না ভেবেই উত্তর দেন যে, আসলেই এ বিষয়ে কিছুই করার নেই। পরে দেখা যায়, প্রশ্নকারীর কাঙ্খিত চাহিদা অনুযায়ী ফল এসেছে। এ বিষয়ে আপনি কি বলবেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *