তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবসা

অফলাইনের ব্যবসা হবে এবার অনলাইনে!

অফলাইনের ব্যবসা হবে এবার অনলাইনে!

দুনিয়াটা এখন তথ্যপ্রযুক্তির ভাষায় দু ভাগ হয়ে গেছে। অনলাইন আর অফলাইন দুনিয়া! আপনি ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত আছেন মানে আপনি অনলাইন আর যুক্ত না থাকলে আপনি হচ্ছেন অফলাইন দুনিয়ার বাসিন্দা। অনলাইন দুনিয়ার একজন হতে হলে যে আপনাকে আহামরি পরীক্ষা দিয়ে এর বাসিন্দা হতে হবে সেটাও কিন্ত না!

আগেই বলেছি, আপনি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী মানেই আপনি অনলাইন দুনিয়ার একজন। সেই অনলাইন দুনিয়াতেও এখন তৈরি হয়েছে নতুন সমাজ। ব্যবসা-বাণিজ্যও হচ্ছে সেখানে। সবচেয়ে বিস্ময়কর তথ্য হলো, অনলাইন দুনিয়ার ব্যবসার প্রসার কিন্ত এখন বলতে গেলে অফলাইন ব্যবসার জগতকে পেছনে ফেলেছে। আর এরকম অবস্থাতেও, আপনি যদি শুধুই একজন অফলাইন ব্যবসায়ী হয়ে থাকেন। তবে আপনি বাস করছেন বোকার স্বর্গে।

প্রত্যেক ব্যবসায়ীর প্রধান লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হলো, ব্যবসার মাধ্যমে প্রফিট করা এবং ব্যবসা সম্প্রসারণ করে সেই প্রফিট বাড়ানো। এই তথ্যপ্রযুক্তির যুগে, আপনার ব্যবসার প্রসার করার পথ এখন পুরোটাই উন্মোচিত। আপনার ব্যবসা আগে একটি এলাকাতে সীমাবদ্ধ থাকলেও ইন্টারনেট আপনার বাজার হিসেবে এনে দিয়েছে গোটা দুনিয়াকেই। অর্থাৎ আপনার অফলাইনের ব্যবসা অনলাইনে আনলেই আপনার মার্কেটপ্লেস সীমাবদ্ধ থাকছেনা আর কোন নির্দিষ্ট এলাকাতে। বিশ্বের যেকোন প্রান্তের একজন ইন্টারনেট ইউজারও হতে পারে আপনার ব্যবসার সম্ভাব্য কাস্টমার। এছাড়া নির্দিষ্ট এলাকা ভিত্তিক ব্যবসার ক্ষেত্রেও সুযোগ হবে বাড়তি প্রচার প্রচারনার।

আসুন জেনে নিই, অনলাইনের কিছু প্ল্যাটফর্ম যেগুলো আপনার অফলাইনের ব্যবসাকে অনলাইনে শুরু করতে সাহায্য করবে।

সোশ্যাল মিডিয়া সাইট – ফেসবুক

বর্তমান যুগে অনলাইনে বিনামূল্যে ব্যবসা বাণিজ্যের সবচেয়ে বড় এবং কার্যকারী প্ল্যাটফর্ম হল সোশ্যাল মিডিয়া সাইট। যদিও বাংলাদেশের ব্যবসা জগতে ফেসবুক -ই একমাত্র কার্যকারী সোশ্যাল মিডিয়া সাইট হিসেবে পরিচিত। এলাকার ছোটখাট ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে দেশের নামী দামী ব্র্যান্ড, সবার পদচারনা খেয়াল করা যায় এখন ফেসবুকে। কারণ, অনলাইন জগতের সর্বাধিক ব্যবহৃত এই সাইটে আনাগোনা রয়েছে সবধরনের মানুষের। আর নিজেদের কাস্টমারদের সাথে অনলাইনে যোগাযোগ রক্ষার্থে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো বেছে নিচ্ছে এই ফেসবুক -কে। নির্দিষ্ট শ্রেনীর কাস্টমারদের কাছে বিজ্ঞাপন পৌঁছে দেয়ার সুবিধা ফেসবুককে করেছে আরও অধিক জনপ্রিয়। তাই আজই আপনার ছোট্ট ব্যবসাটিকেও আনুন অনলাইনে। আর ফেসবুকের মাধ্যমে নিজের প্রডাক্ট সার্ভিস প্রমোট করুন সহজেই।

ক্লাসিফাইড এড সাইট – বিক্রয় ডট কম

বাংলাদেশে ক্লাসিফাইড বিজ্ঞাপনের সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট হল বিক্রয় ডট কম। প্রতিদিন লাখ লাখ দেশীয় ক্রেতা বিক্রেতাদের ভিড় হয় এই ওয়েবসাইটে। জনপ্রিয় এই ক্লাসিফাইড এড সাইটে শুধু পুরাতন জিনিসপত্রই নয়, বিক্রি হচ্ছে নতুন সব প্রডাক্ট এবং সার্ভিসও। আপনার প্রডাক্ট বা সার্ভিসের বিনামূল্যে বিজ্ঞাপন দিয়ে তা তুলে ধরতে পারবেন নির্দিষ্ট এলাকার কাস্টমারদের কাছে। ফ্রি এডসের পাশাপাশি রয়েছে পেইড বিজ্ঞাপনেরও সুবিধা। তাই বিক্রয় ডট কম হতে পারে আপনার ব্যবসা প্রসারের একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম।

ভিডিও শেয়ারিং সাইট – ইউটিউব

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিডিও শেয়ারিং সাইট হল ইউটিউব। বিনামূল্যে ভিডিও দেখা এবং আপলোড দেয়ার জন্য যার জুড়ি নেই। ব্যবসায়ী/উদ্যোক্তারা তাঁদের প্রডাক্ট/সার্ভিসকে প্রমোট করতে বেছে নিয়েছে এখন ইউটিউবকেও। মূলত, অনলাইন শপিং সাইটগুলোর প্রমোশনের ক্ষেত্রেই ইউটিউবের ব্যবহার বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। প্রডাক্টের রিভিউ ভিডিও আপলোডের মাধ্যমে ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো। তাই ইউটিউবের সহায়তায় আপনিও শুরু করতে পারেন অনলাইন শপিং সাইট।

নিজস্ব ওয়েবসাইট

আপনার অফলাইন ব্যবসাকে অনলাইনে পূর্ণতা দিতে তৈরি করতে পারেন নিজস্ব ওয়েবসাইটও। তবে মোটামুটি মাঝারি এবং বড় ব্যবসার ক্ষেত্রেই ওয়েবসাইট দিয়ে শুরু করা উচিৎ। ছোট ব্যবসায়ের অনলাইন কার্যক্রম শুরুর জন্য নিজস্ব ওয়েবসাইটের প্রয়োজন নেই। দেশ কিংবা দেশের বাহিরেও যদি আপনার ব্যবসার বিস্তার থাকে তবে আপনার শুরুটা অবশ্যই নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই হওয়া উচিৎ। এতে করে অনলাইন কাস্টমারদের কাছে আপনার ব্যবসায়িক গ্রহনযোগ্যতা বৃদ্ধি পাবে। ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট সংক্রান্ত সার্ভিস নিতে ভিজিট করতে পারেন সমাধান আইটি

কম খরচে ওয়েবসাইট ডিজাইন ডেভেলপমেন্ট সার্ভিস

লেখক সম্পর্কে জানুন

আব্দুল্লাহ আল মারুফ

আমি মারুফ। রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে একাউন্টিং নিয়ে পড়াশুনা করছি। পড়াশুনার পাশাপাশি অনলাইন মার্কেটপ্লেসে কাজ করছি ফ্রিল্যান্স আইটি প্রফেশনাল হিসেবে। আর ভাললাগে অনলাইনে লেখালেখি করতে...

মন্তব্য দিন